ঢাকা ০৫:৪৮ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
তিন দিনেও খোঁজ মিলেনি দশম শ্রেণির ছাত্র সাফি’র টাঙ্গাইলে বৃক্ষরোপণ অভিযান ও বৃক্ষ মেলা সমাপ্ত টাঙ্গাইলে কোটা সংস্কারসহ একদফা দাবিশে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান টাঙ্গাইলে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার ও অবৈধ পাচারবিরোধী আন্তর্জাতিক দিবস পালিত টাঙ্গাইলে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান এরশাদের স্মরণে আলোচনা সভা টাঙ্গাইলে ডেঙ্গু, চিকুনগুনিয়া ও ম্যালেরিয়া রোধে পুলিশের ক্লিনিং স্যাটারডে পালন হরিজন কলোনীতে হামলা ও মন্দির ভাংচুরের প্রতিবাদে টাঙ্গাইলে সমাবেশ কালিহাতীতে শাজাহান সিরাজ কলেজের ৪৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন টাঙ্গাইলে যুবলীগের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ বিতরণ দেশ স্বাধীনের পাশাপাশি রাষ্ট্রের উন্নয়নে অবদান রেখেছেন নুরুল ইসলাম বাবুল

টাঙ্গাইল হাসপাতালের সাবেক ইমও’র রহস্যজনক মৃত্যু

দেলদুয়ার প্রতিনিধি :
প্রকাশ: ০১:০০:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের সাবেক ইমার্জেন্সী মেডিকেল অফিসার(ইমও) ডা. মোফাজ্জল হোসেনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকালে দেলদুয়ার উপজেলার পাথরাইল ইউনিয়নের শুভকী-কৈজুরি গ্রামে নিজ বাড়িতে ওই মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মৃত কবীর উদ্দিনের ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, ডা. মোফাজ্জল হোসেনের একমাত্র কন্যা মৌরি তার ঢাকার বাসাসহ নানা সম্পদ কৌশলে লিখে নেন। গ্রামের বাড়ির সম্পত্তির জন্য বাবা-মেয়ের মধ্যে মনোমালিন্যের পর দীর্ঘদিন ধরে স্নায়ুযুদ্ধ চলছিল। তিনি চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার পর গত ছয়মাস ধরে গ্রামের বাড়িতে বসবাস করছেন। এ ছয় মাসের মধ্যে ডা. মোফাজ্জল হোসেনকে তার স্ত্রী বাড়ির বাইরে যেতে দেননি। এছাড়া ওই বাড়িতে প্রতিবেশি কাউকে যেতে দেওয়া হতো না। মেয়ে ও স্ত্রী বাড়ির বাইরে গেলে তাকে ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখা হতো। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) দুপুরে স্বামীর বাড়ি থেকে তার মেয়ে মৌরি বাড়িতে আসেন। বুধবার সকালে প্রতিবেশিরা জানতে পারেন, ডাক্তার মোফাজ্জল হোসেন মৃত্যুবরণ করেছে।

নিহতের চাচাত ভাই মো. আব্দুর রউফ সরকার জানান, ডা. মোফাজ্জল হোসেন দীর্ঘ ১২ বছর টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে কর্মরত ছিলেন। চাকরি শেষে তিনি ঢাকায় না থেকে গ্রামের বাড়িতে বসবাস করছিলেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ডা. মোফাজ্জল হোসেনের একমাত্র মেয়ে মৌরি ও স্ত্রীর সাথে পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। ভোরে তিনি জানতে পারেন, তার ভাই ডা. মোফাজ্জল হোসেন হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

দেলদুয়ার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করেছে। সুরতহাল রিপোর্টে তার গলায় ক্ষত ও দুই কানের নিচে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। পরে মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

এম.কন্ঠ/০৬ মার্চ/এম.টি

নিউজটি শেয়ার করুন

টাঙ্গাইল হাসপাতালের সাবেক ইমও’র রহস্যজনক মৃত্যু

প্রকাশ: ০১:০০:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ৬ মার্চ ২০২৪

টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের সাবেক ইমার্জেন্সী মেডিকেল অফিসার(ইমও) ডা. মোফাজ্জল হোসেনের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকালে দেলদুয়ার উপজেলার পাথরাইল ইউনিয়নের শুভকী-কৈজুরি গ্রামে নিজ বাড়িতে ওই মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তিনি ওই গ্রামের মৃত কবীর উদ্দিনের ছেলে।

স্থানীয়রা জানায়, ডা. মোফাজ্জল হোসেনের একমাত্র কন্যা মৌরি তার ঢাকার বাসাসহ নানা সম্পদ কৌশলে লিখে নেন। গ্রামের বাড়ির সম্পত্তির জন্য বাবা-মেয়ের মধ্যে মনোমালিন্যের পর দীর্ঘদিন ধরে স্নায়ুযুদ্ধ চলছিল। তিনি চাকরি থেকে অবসর নেওয়ার পর গত ছয়মাস ধরে গ্রামের বাড়িতে বসবাস করছেন। এ ছয় মাসের মধ্যে ডা. মোফাজ্জল হোসেনকে তার স্ত্রী বাড়ির বাইরে যেতে দেননি। এছাড়া ওই বাড়িতে প্রতিবেশি কাউকে যেতে দেওয়া হতো না। মেয়ে ও স্ত্রী বাড়ির বাইরে গেলে তাকে ঘরে তালাবদ্ধ করে রাখা হতো। মঙ্গলবার (৫ মার্চ) দুপুরে স্বামীর বাড়ি থেকে তার মেয়ে মৌরি বাড়িতে আসেন। বুধবার সকালে প্রতিবেশিরা জানতে পারেন, ডাক্তার মোফাজ্জল হোসেন মৃত্যুবরণ করেছে।

নিহতের চাচাত ভাই মো. আব্দুর রউফ সরকার জানান, ডা. মোফাজ্জল হোসেন দীর্ঘ ১২ বছর টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে কর্মরত ছিলেন। চাকরি শেষে তিনি ঢাকায় না থেকে গ্রামের বাড়িতে বসবাস করছিলেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাতে ডা. মোফাজ্জল হোসেনের একমাত্র মেয়ে মৌরি ও স্ত্রীর সাথে পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়। ভোরে তিনি জানতে পারেন, তার ভাই ডা. মোফাজ্জল হোসেন হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে মৃত্যুবরণ করেছে। এ নিয়ে এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

দেলদুয়ার থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহ উদ্ধার করেছে। সুরতহাল রিপোর্টে তার গলায় ক্ষত ও দুই কানের নিচে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। পরে মরদেহটি ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। তদন্ত রিপোর্ট পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

 

এম.কন্ঠ/০৬ মার্চ/এম.টি