ঢাকা ১০:০৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সর্বশেষ
ঘাটাইলে কোটা সংস্কারের দাবিতে সড়ক অবরোধ কালিহাতীতে কোটা সংস্কারের দাবিতে টাঙ্গাইল-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ কোটা আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে টাঙ্গাইলে মুক্তিযোদ্ধাদের বিক্ষোভ টাঙ্গাইলে নাইট কেয়ার সেন্টার পরিদর্শন ও ষান্মাসিক সমন্বয় সভা বাসাইলে বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও পুরস্কার বিতরণ ঘাটাইলে স্বামীর গোপনাঙ্গ কাটার অভিযোগে মামলা, মামলা না তোলায় সন্ত্রাসী হামলা ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ টাঙ্গাইলে বিবেকানন্দ স্কুলের শিক্ষার্থীদের শিক্ষা উপকরণ বিতরণ ঘাটাইলে কচুরিপানা পরিষ্কার করতে নেমে বৃদ্ধের মৃত্যু ধনবাড়ীতে কোটা আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের মানববন্ধন

স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সম্মাননা দিলো ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবার

নিজস্ব প্রতিবেদক :
প্রকাশ: ০৭:৫৯:০১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

স্বেচ্ছায় রক্তদানে উৎসাহ বাড়াতে রক্তদাতাদের সম্মাননা দিয়েছে ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবার নামে একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

শনিবার সকালে টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার পাথরাইলে আই.ই.এফ ফাউন্ডেশন কর্তৃক পরচালিত ইমপ্রুভ চাইল্ড কেয়ার স্কুলের বার্ষিক দোআ মাহফিল, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এ সম্মাননা দেয়া হয়।

জেলার বিভিন্ন এলাকার ২০ জন স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সম্মাননা স্মারক ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা জানায় প্রতিষ্ঠানটি। স্বেচ্ছাসেবী কাজের স্বীকৃতি পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন রক্তদাতারা। সম্মাননা প্রাপ্ত অধিকাংশ রক্তদাতাই ২০ থেকে ২৮ বার পর্যন্ত স্বেচ্ছায় রক্ত দান করেছেন।

ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবারের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক রেজাউল করিম জানান, দেশে প্রতি বছর ৯ লাখ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন। এর মধ্যে বিভিন্নভাবে ৬ লাখ ব্যাগ রক্তের ব্যবস্থা হয়। প্রতিবছর দেশে ৩ লাখ ব্যাগ রক্তের ঘাটতি থাকে। রক্তের বড় জোগান দিয়ে থাকেন স্বেচ্ছায় রক্ত দেয়া স্বেচ্ছাসেবীরা। রক্ত দেয়ার পর অনেকেই এসব রক্তদাতাদের খোঁজ রাখেন না। রক্তদাতাদের সম্মান জানাতে ও সাধারণ মানুষের মাঝে রক্তদানে উৎসাহ বাড়াতে আমরা রক্তদাতাদের সম্মাননার আয়োজন করেছি।

পরিচালক বলেন, রক্ত দান মানবতার শ্রেষ্ঠ দান। একজন মানুষের এক ফোটা রক্ত মানবতার জন্য সবচেয়ে বড় উপহার। টাকা দিয়ে জীবন বাঁচানো যায় না। অথচ এক ব্যাগ রক্ত দিয়ে একজন মানুষকে বাঁচানো যায়। যে রক্ত দেয় তার কোন খরচ হয় না। তবে রক্ত গ্রহিতার লাভ তার পুরো জীবনটা বেঁচে যায়। আমি এক ব্যাগ রক্ত দিয়ে একজনকে বাঁচাতে পারবো। কিন্ত উৎসাহ দিয়ে রক্তদাতা বাড়াতে পারলে অনেকের জীবন বেঁচে যাবে। এটা একটি ম্যাসেজ। আমার বিশ^াস এই ম্যাসেজ প্রতিটি সুস্থ মানুষকে উৎসাহিত করবে।

তিনি আরও বলেন, ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবার শিক্ষা সেবার পাশাপাশি প্রতিবছর ভিন্ন ভিন্ন পেশার মানুষদেরকে সম্মাননা দিয়ে আসছে। এর আগে বীর মুক্তিযোদ্ধা, সফল পিতা-মাতা, সফল প্রবাসী ও কৃষকদের সম্মাননা দিয়েছে। আগামীতেও আমাদের এমন ব্যতিক্রমী প্র”েষ্টা অব্যাহত থাকবে।

সম্মাননা প্রাপ্তদের মধ্যে ২৩ বার রক্ত দেয়া এনায়েত করিম বিজয়, ২৮বার রক্ত দেয়া আশিকুর রহমান বলেন, আমরা মানবিক মূল্যবোধ থেকে স্বেচ্ছায় বিনামূল্যে রক্ত দিয়ে থাকি। রক্তদাতাদের নিয়ে ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবারের এমন ব্যতিক্রমী আয়োজনে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। স্বীকৃতি স্বরূপ সম্মাননা পেয়ে আমি গর্বিত। সারাদেশে সরকারি বেসরকারিভাবে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করলে স্বেচ্ছায় রক্তদানে সাধারণ মানুষের আগ্রহ বাড়বে।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই দেশ ও জাতির কল্যাণে দোআ করা হয়। এরপর ডিসপ্লে প্রদর্শন, স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সম্মাননা , ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠানের শিশু শিক্ষার্থী উপস্থাপক সাবিহা আক্তার বাংলায় ও আব্দুল্লাহ আল মামুন ইংরেজি ভাষায় উপস্থাপনা করে অতিথিদের মুগ্ধ করে।

স্কুলে পড়ালেখা করেও নৈতিক শিক্ষা অর্জন করা যায় তার প্রমান দিলেন শিক্ষার্থীরা। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে শিশুরা জানাযা নামাজ প্রদর্শণ করে দেখালেন উপস্থিতিদের। সনাতন ধর্মাবলম্বী শিশুরা ব্রাহ্মণের ওপর নির্ভর না করে নিজেদের সরস্বতি পূজা যেন নিজেরাই করতে পারে এজন্য বিদ্যালয় হিন্দু ছাত্রছাত্রীদের পূজাও শিখিয়েছেন নিখুঁতভাবে। শিক্ষার্থীরা সরস্বতি পূজা প্রদর্শণ করে দেখালেন অনুষ্ঠানে। রক্তদানে আগ্রহ বাড়াতে কোমলমতি শিশুরা রক্তদানের ওপর একটি নাটিকায় অভিনয় করেও দেখালেন । এছাড়াও মনোজ্ঞ ডিসপ্লে প্রদর্শন করা হয়।

ইমপ্রুভ চাইল্ড কেয়ার স্কুলের প্রধান শিক্ষক কামরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ধামরাই উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার এসএম হাসান, পাথরাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রামপ্রসাদ সরকার, সাবেক ইউপি চেয়াম্যান আব্দুল আজিজ চাঁন খা ও দেওজান সমাজ কল্যাণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম রাশেদসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ২০ জন স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের অতিথি করায় বিভিন্ন এলাকার অসংখ্য মানুষ ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানটি উপভোগ করতে আসেন।

বক্তব্যে অভিভাবকরা বলেন, ‘অনুষ্ঠানে স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের মূল্যায়ন করা হয়েছে। এটা সত্যিই অনেক ভালো লেগেছে। এসব ব্যতিক্রমী উদ্যোগের পাশাপাশি দীর্ঘদিন যাবৎ শিক্ষার মান উন্নয়ন নিয়েও প্রতিষ্ঠানটি কাজ করছে। শিক্ষার্থীর পড়ার মান বজায় রাখতে প্রতিনিয়ত হোম ভিজিট, মোবাইল কমিউনিকেশন, রাতে পড়ার টেবিলে শিক্ষার্থীরা আছে কি না সেজন্য রাতে শিক্ষার্থীদের বাড়ি পরিদর্শন করে থাকে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা। ট্রাফিক রুলস পাঠ্য করণের পাশাপাশি শিশুদের পরিক্ষা ভয় দূর করতে মাসিক ভাইবা পরিক্ষা নিঃসন্দেহে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। শিশুদের ঝরে পড়া রোধে বিনা বেতন বা অর্ধবেতনে পাঠদান করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানটির দুইযুগ পেরিয়ে ২৫ এ পা দেয়া বছরের ক্রীড়া অনুষ্ঠানে মেধাবী শিক্ষার্থী ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন স্বেচ্ছায় রক্তদাতা অতিথিরা।

এম.কন্ঠ/২৪ ফেব্রুয়ারি/ এম.টি

নিউজটি শেয়ার করুন

স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সম্মাননা দিলো ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবার

প্রকাশ: ০৭:৫৯:০১ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

স্বেচ্ছায় রক্তদানে উৎসাহ বাড়াতে রক্তদাতাদের সম্মাননা দিয়েছে ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবার নামে একটি বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

শনিবার সকালে টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার পাথরাইলে আই.ই.এফ ফাউন্ডেশন কর্তৃক পরচালিত ইমপ্রুভ চাইল্ড কেয়ার স্কুলের বার্ষিক দোআ মাহফিল, ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে এ সম্মাননা দেয়া হয়।

জেলার বিভিন্ন এলাকার ২০ জন স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সম্মাননা স্মারক ক্রেস্ট দিয়ে সম্মাননা জানায় প্রতিষ্ঠানটি। স্বেচ্ছাসেবী কাজের স্বীকৃতি পেয়ে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন রক্তদাতারা। সম্মাননা প্রাপ্ত অধিকাংশ রক্তদাতাই ২০ থেকে ২৮ বার পর্যন্ত স্বেচ্ছায় রক্ত দান করেছেন।

ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবারের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক রেজাউল করিম জানান, দেশে প্রতি বছর ৯ লাখ ব্যাগ রক্তের প্রয়োজন। এর মধ্যে বিভিন্নভাবে ৬ লাখ ব্যাগ রক্তের ব্যবস্থা হয়। প্রতিবছর দেশে ৩ লাখ ব্যাগ রক্তের ঘাটতি থাকে। রক্তের বড় জোগান দিয়ে থাকেন স্বেচ্ছায় রক্ত দেয়া স্বেচ্ছাসেবীরা। রক্ত দেয়ার পর অনেকেই এসব রক্তদাতাদের খোঁজ রাখেন না। রক্তদাতাদের সম্মান জানাতে ও সাধারণ মানুষের মাঝে রক্তদানে উৎসাহ বাড়াতে আমরা রক্তদাতাদের সম্মাননার আয়োজন করেছি।

পরিচালক বলেন, রক্ত দান মানবতার শ্রেষ্ঠ দান। একজন মানুষের এক ফোটা রক্ত মানবতার জন্য সবচেয়ে বড় উপহার। টাকা দিয়ে জীবন বাঁচানো যায় না। অথচ এক ব্যাগ রক্ত দিয়ে একজন মানুষকে বাঁচানো যায়। যে রক্ত দেয় তার কোন খরচ হয় না। তবে রক্ত গ্রহিতার লাভ তার পুরো জীবনটা বেঁচে যায়। আমি এক ব্যাগ রক্ত দিয়ে একজনকে বাঁচাতে পারবো। কিন্ত উৎসাহ দিয়ে রক্তদাতা বাড়াতে পারলে অনেকের জীবন বেঁচে যাবে। এটা একটি ম্যাসেজ। আমার বিশ^াস এই ম্যাসেজ প্রতিটি সুস্থ মানুষকে উৎসাহিত করবে।

তিনি আরও বলেন, ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবার শিক্ষা সেবার পাশাপাশি প্রতিবছর ভিন্ন ভিন্ন পেশার মানুষদেরকে সম্মাননা দিয়ে আসছে। এর আগে বীর মুক্তিযোদ্ধা, সফল পিতা-মাতা, সফল প্রবাসী ও কৃষকদের সম্মাননা দিয়েছে। আগামীতেও আমাদের এমন ব্যতিক্রমী প্র”েষ্টা অব্যাহত থাকবে।

সম্মাননা প্রাপ্তদের মধ্যে ২৩ বার রক্ত দেয়া এনায়েত করিম বিজয়, ২৮বার রক্ত দেয়া আশিকুর রহমান বলেন, আমরা মানবিক মূল্যবোধ থেকে স্বেচ্ছায় বিনামূল্যে রক্ত দিয়ে থাকি। রক্তদাতাদের নিয়ে ইমপ্রুভ শিক্ষা পরিবারের এমন ব্যতিক্রমী আয়োজনে আমরা অত্যন্ত আনন্দিত। স্বীকৃতি স্বরূপ সম্মাননা পেয়ে আমি গর্বিত। সারাদেশে সরকারি বেসরকারিভাবে এমন উদ্যোগ গ্রহণ করলে স্বেচ্ছায় রক্তদানে সাধারণ মানুষের আগ্রহ বাড়বে।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই দেশ ও জাতির কল্যাণে দোআ করা হয়। এরপর ডিসপ্লে প্রদর্শন, স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের সম্মাননা , ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠানের শিশু শিক্ষার্থী উপস্থাপক সাবিহা আক্তার বাংলায় ও আব্দুল্লাহ আল মামুন ইংরেজি ভাষায় উপস্থাপনা করে অতিথিদের মুগ্ধ করে।

স্কুলে পড়ালেখা করেও নৈতিক শিক্ষা অর্জন করা যায় তার প্রমান দিলেন শিক্ষার্থীরা। দিনব্যাপী অনুষ্ঠানে শিশুরা জানাযা নামাজ প্রদর্শণ করে দেখালেন উপস্থিতিদের। সনাতন ধর্মাবলম্বী শিশুরা ব্রাহ্মণের ওপর নির্ভর না করে নিজেদের সরস্বতি পূজা যেন নিজেরাই করতে পারে এজন্য বিদ্যালয় হিন্দু ছাত্রছাত্রীদের পূজাও শিখিয়েছেন নিখুঁতভাবে। শিক্ষার্থীরা সরস্বতি পূজা প্রদর্শণ করে দেখালেন অনুষ্ঠানে। রক্তদানে আগ্রহ বাড়াতে কোমলমতি শিশুরা রক্তদানের ওপর একটি নাটিকায় অভিনয় করেও দেখালেন । এছাড়াও মনোজ্ঞ ডিসপ্লে প্রদর্শন করা হয়।

ইমপ্রুভ চাইল্ড কেয়ার স্কুলের প্রধান শিক্ষক কামরুল ইসলামের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ধামরাই উপজেলা সমাজ সেবা অফিসার এসএম হাসান, পাথরাইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রামপ্রসাদ সরকার, সাবেক ইউপি চেয়াম্যান আব্দুল আজিজ চাঁন খা ও দেওজান সমাজ কল্যাণ বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক রফিকুল ইসলাম রাশেদসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ২০ জন স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের অতিথি করায় বিভিন্ন এলাকার অসংখ্য মানুষ ব্যতিক্রমী অনুষ্ঠানটি উপভোগ করতে আসেন।

বক্তব্যে অভিভাবকরা বলেন, ‘অনুষ্ঠানে স্বেচ্ছায় রক্তদাতাদের মূল্যায়ন করা হয়েছে। এটা সত্যিই অনেক ভালো লেগেছে। এসব ব্যতিক্রমী উদ্যোগের পাশাপাশি দীর্ঘদিন যাবৎ শিক্ষার মান উন্নয়ন নিয়েও প্রতিষ্ঠানটি কাজ করছে। শিক্ষার্থীর পড়ার মান বজায় রাখতে প্রতিনিয়ত হোম ভিজিট, মোবাইল কমিউনিকেশন, রাতে পড়ার টেবিলে শিক্ষার্থীরা আছে কি না সেজন্য রাতে শিক্ষার্থীদের বাড়ি পরিদর্শন করে থাকে প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা। ট্রাফিক রুলস পাঠ্য করণের পাশাপাশি শিশুদের পরিক্ষা ভয় দূর করতে মাসিক ভাইবা পরিক্ষা নিঃসন্দেহে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। শিশুদের ঝরে পড়া রোধে বিনা বেতন বা অর্ধবেতনে পাঠদান করে আসছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিষ্ঠানটির দুইযুগ পেরিয়ে ২৫ এ পা দেয়া বছরের ক্রীড়া অনুষ্ঠানে মেধাবী শিক্ষার্থী ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন স্বেচ্ছায় রক্তদাতা অতিথিরা।

এম.কন্ঠ/২৪ ফেব্রুয়ারি/ এম.টি